1. admin@dailynewsbangladesh24.com : admin :

ঝালকাঠি নলছিটিতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষন করে শালিশের মাধ্যমে সমাধান।

  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২১
  • ২৬৭ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার সরমহল গ্রামে দশম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রী ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি ধামাচাপা দিতে শুক্রবার দিনভর দৌড়ঝাঁপ করেছে স্থানীয় একটি মহল। থানা এবং ইউনিয়ন পরিষদে ছোটাছুটির পর শেষ পর্যন্ত শুক্রবার বিকেলে ধর্ষকের বাড়িতে স্থানীয় কিছু লোকজন গ্রাম্য সালিশী বসায়। সালিশদারদের পরামর্শে ধর্ষিতা মেয়েটির নামে ৫ কাঁঠা জমি লিখে দেয়ার সিদ্ধান্তে রাজী হয় ধর্ষক আল আমিনের বাবা আঃ রশিদ খান। এতেই ঘটনার রফাদফা হয়ে যায়।

এদিকে কুশঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন বলেন, টিপু তার ভাই দেলোয়ারকে নিয়ে শুক্রবার সকালে আমার কাছে এসে ঘটনা মিমাংসা করে দিতে বলে। আমি পরিষ্কার বলে দিয়েছি স্কুল ছাত্রী ধর্ষনের সালিশ মিমাংসা এখানে হবে না। তোমরা থানার ওসি অথবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে যাও।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় বেশ ক’জন ঘটনার বিবরণ দিয়ে বলেন, প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে রাত ১১ টার দিকে ঘরের বাইরে বের হয় সরমহল পুনিহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রী। দীর্ঘ সময় সে ঘরে না আসায় ঐ শিক্ষার্থীর বড় বোন দরজা খুলে বাইরে নামার পর বাথরুমে না পেয়ে বাড়ির লোকজন নিয়ে খুজতে বের হয়। মেয়েটিকে খোঁজাখুজি করে না পেয়ে রাতেই পাশের বাড়ির আঃ রশিদ খানের বাড়িতে গেলে তারাও তার ছেলে আল-আলিমনকে ঘরে না পেয়ে মোবাইলে ফোন দেয়। সে দীর্ঘ সময়েও ফোন রিসিভ করেনি। পরে ফজরের সময় আল আমিন বাড়িতে এসে বলে সে রাতে তার নানা বাড়ি ফরাজী বাড়িতে ছিলো।

২৩ এপ্রিল শুক্রবার সকাল সারে ৭ টার দিকে ফরাজী বাড়ির সামনে জোড়া ব্রিজের রাস্তার পাশে অজ্ঞান অবস্থায় এলাকাবাসী মেয়েটিকে উদ্ধার করে। একই গ্রামের কবির হোসেন বলেন, সকালে অসুস্থ মেয়েটিকে ভ্যানগাড়ীতে করে তার ভাই, বোন, ভগ্নিপতিকেসহ থানার দিকে নিয়ে গেছে টিপু সুলতান।

নলছিটি থানার ওসি মো. আলী আহম্মেদ বলেন স্কুল শিক্ষার্থী ধর্ষনের কোন অভিযোগ আমি পাইনি। আর গ্রাম্য সালিশ হয়েছে তাও আমার নলেজে নেই, কেউ আমাকে জানায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © Dainik News Bangladesh 24
Theme Customized By Shakil IT Park